বঙ্গবন্ধু পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ সম্মেলনে ৬ কর্মকর্তার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের দাবী 

81

জুয়েল সাদত

বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৬ জন কর্মকর্তাকে আমেরিকায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করায় যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সংবাদ সম্মেলন, প্রেস কনফারেন্স এবং নিষেধাঙ্ঘা  প্রত্যাহারের দাবী পেশ ।

বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৬ জন কর্মকর্তাকে আমেরিকায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ ।গত ৩০ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসির ন্যাশনাল পার্ক মলস্থ, জর্জ ওয়াশিংটন মনুমেন্টের পাদদেশে ন্যাশনাল স্যুলভিন থুয়েটারের মন্চে এক জরুরী সংবাদ সম্মেলন এবং প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ । যুক্তরাষ্টের জাতীয় থিয়েটার মন্চ একটি ঐতিহাসিক ভ্যানু এবং এই ভ্যানুর জন্য জো বাইডেন  প্রশাসনের ইনটেরিয়র ডিপার্টমেন্ট হতে পারমিট নিতে হয়েছে ।

সভাপতি ডঃ রাব্বী আলমের সভাপতিত্বে এবং প্রচার সম্পাদক মোঃ শাহীন ও সাংগাঠনিক সম্পাদক মাহবুব রাব্বি খানের প্রানবন্ত জুম  সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় নেতা কর্মীরা আলোচনা করেন এবং বাংলাদেশ সহ যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ ও গন মাধ্যম গুলিকে সামনের দিকে এগিয়ে আসতে আহ্ববান করা হয় । বক্তারা বলেন সংবাদ কর্মীদের লিখনীর মাধ্যমে আমারা আমাদের প্রিয় বাংলাদেশকে শত্রুদের ষড়যন্ত্রের হাত থেকে রক্ষা করতে পারি ।

সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ এবং সাংবাদিক বৃন্দ জুমের মাধ্যমে সংযুক্ত হয় । এসময় ওয়াশিংটন ডিসির চ্যানেল ৫ এবং চ্যানেল ৯ উপস্তিত থেকে সংবাদ সম্মেলনে যোগদান করেন । আর টিভি, ইন্টারন্যাশনাল টেলিভিশন, বাংলা টিভি ইউ এস এ, ইউ এস এ নিউজ অনলাইন, ওয়াশিংটন সংবাদ, মিলেনিয়াম টিভি, ক্রাইম নিউজ বাংলাদেশ, ডিট্রয়েট ফ্রি প্রেস, মেট্রো ওয়াশিংটন এ্যাকশান নিউজ, দ্যা ক্যানসাস সিটি নিউজ, সাংবাদিক শাখাওয়াত হোসেন সেলিম, কলামিষ্ট রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ সম্পাদক আল মাসুম খান এবং জার্নালিস্ট কামরুজ্জামান হেলাল সংযুক্ত হয় ।

এসময় পরিষদের পক্ষে উপদেষ্টা হিন্দাল কাদির বাপ্পা, উপদেষ্টা বীর মুক্তিযাদ্ধা মুজাহিদুল ইসলাম, সহ সভাপতি এটোর্নি মোহাম্মদ আলমগীর, সহসভাপতি ইউ এস আর্মি (অব:) স্টাফ সার্জেন্ট লিওনার্দো গোমেজ, মহিলা সহ-সম্পাদিকা নুরুন আলম, সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ মাঈনুদদীন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মিনহাজ রাসেল চৌধুরী, আইন বিষয়ক সম্পাদক কাজী ওহেদুজ্জামান স্বপন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক এহসান মাসুদ, পলিটিক্যাল সেক্রেটারী আবদুল মুকিত, কোষাধক্ষ্য অপ্রেরেশ বড়ূয়া, কার্যকরী সদস্য ইলিয়াস রহমান, কার্যকরী সদস্য আকবর হোসেন, কার্যকরী সদস্য মোহাম্মদ মুহিব উদ্দীন জেমস, কার্যকরী সদস্য অশোক দাস, কার্যকরী সদস্য ড. হাসান আহমেদ এবং পেন্সিলভেনিয়া বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আব্দুল হাই মিয়া সংযুক্ত হন ।

সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতা কর্মী ছাড়া ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমান, যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু কমিশনের চেয়ারম্যান এগ্রিকালচারিষ্ট ইনি্জনিয়ার শেরে আলম রাসু, যুক্তরাষ্ট্র মহিলা লীগের সভাপতি মমতাজ শাহনাজ, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগ শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এম এ করিম জাহাঙ্গীর, আলবেনী আওয়ামীলীগ সভাপতি মিজানুর রহমান , যুক্তরাষ্ট্র সেচ্ছাস্বক লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সরদার এবং সাধারন সম্পাদক নাফিকুর রহমান তুরান উপস্তিত ছিলেন ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পেশ করেন সংশিল্লিষ্ট সংগঠনের সভাপতি ডক্টর রাব্বী আলম । ড. রাব্বী তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়োজিত সরকারী কর্মকর্তা এবং অপরাপর সংগঠনগুলোর অসচেতনতার কারনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে একাত্তরের পরাজিত শক্তিরা আবারও মাথাছাড়া দিয়ে উঠেছে । আমাদের প্রিয় মাতৃভুমি বাংলাদেশ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকারের ভাবমু্তি ক্ষুন্ন হতে দেব না । আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর শীর্শ ছয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আরোপিত নিষেধাঘ্ঘার প্রতিবাদ ও প্রত্যাহারের এমন দৃপ্ত দাবি নিয়ে আজ ৩০ ডিসেম্বর, ২০২১,  দুপুর ১ টায় ওয়াশিংটন ডিসির ন্যাশনাল মলের স্যলভান থিয়েটার মন্চে এই জরুরী প্রেস কনফারেন্স আপনাদেরকে আহ্ববান জানাই । সংশ্লিষ্ট  বিষয় নিয়ে ইতি মধ্যে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, সিনেট মেজোরিটি লিডার চাক স্যুমার, হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পুলোসি, সেক্রেটীরী অব স্টেট এ্যন্টোনি বিলি্নকেন, এবং টম লেন্টোস মানব অধিকার সংস্খার কো চেয়ারম্যান দ্বয় ম্যাসাচ্যুটেটেস অংগরাজ্যের ডেমোক্রাট কংগ্রেসম্যান জেমস্ পি ম্যাকগভার্ন এবং নিউ জার্সী অংগরাজ্যের রিপাবলিক্যান কংগ্রেসম্যান ক্রিস্টোফার এইচ স্মিথ, এবং সংস্খার অন্যান্য সদস্যবৃন্দ ক্যালিফোর্নিয়া অংগরাজ্যের ডেমোক্রাটিক কংগ্রেসম্যান এলান লুয়েন্থাল, মিনেসোটা অংগরাজ্যের ডেমোক্রাটিক কংগ্রেস ওয়োম্যান ইলহান ওমের, ম্যারিল্যান্ড অংগরাজ্যের ডেমোক্রাটিক কংগ্রেসম্যান জ্যামি রাসকিন এবং ক্যালিফোর্নিয়া অংগরাজ্যের ডেমোক্রাটিক কংগ্রেস ওয়োম্যান নরমা টরেসের অফিসে মেমোরেন্ডাম প্রেরন করা হয়েছে । এছাড়া প্রভাবশালী ডেমোক্রাটি নেতা ভারমোন্ট সেনেটর বার্নি স্যান্ডার্স এবং ম্যাসাচ্যুসেসট্ সেনেটর এ্যালিদাবেথ ওয়ারেন সহ রিপাবলিক্যান টেক্সাস সিনেটর টেড ক্রুরুজ এবং ক্যান্টাকী সেনেটর রেন্ড্য পলের অফিসে এই মেমোরেন্ডাম প্রেরন করা হয়েছে ।

জো বাইডেনের সরকারের বরাবর দৃষ্টি আকর্শন মুলক লিখিত বক্তব্যে বলা হয় “আমেরিকা বাংলাদেশের রেপিড এ্যাকশান ব্যাটেলিয়ন এবং এর ছয় উর্ধতন কর্মকর্তার উপর যে নিষেধাগ্গা জারি করেছে তা অযৌক্তিক, ভিওিহীন এবং পক্ষপাত পুর্ন রাজনৈতিক দুরভীসন্ধি । কোন প্রকার সঠিক বিশ্বসযোগ্য তথ্য উপাথ্য ছাড়াই বাংলাদেশের বর্তমান গনতান্ত্রিক সরকারের বিরুদ্ধাচারীরা এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বোভোমত্বের শত্রুরা অবৈধ, মিথ্যা, বানোয়াট এবং চক্রান্তমুলক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে এহেন ভৌতিক নিষেধাগ্গা জারি করেছে । আমরা বিশ্বাস করি যুক্তরাষ্ট্রকে ভুল এবং বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে উস্কানী দিয়েছে । সুতরাং আমারা এই সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে টম ল্যান্টোস মানব অধিকার সংস্হাকে পুনরায় বিবেচনার আহ্ববান জানাই এবং অতি শীঘ্রই এই নিষেধাগ্গা কে তুলে নেবার জন্য অনুরোধ করছি ।

বাংলাদেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর রেপিড এ্যাকশান ব্যাটেলিয়ন সহ ছয় উর্ধ্বতন কর্মকর্তার উপর আরোপিত নিঋেধাগ্গা প্রত্যাহারের দাবী জানানো হয় । সংস্থাটির  সাবেক মহাপরিচালক এবং বাংলাদেশ পুলিশের বর্তমান ইন্সপেক্টর জেনারেল ড. বেনজীর আহম্মেদ সহ অন্যন্য পাঁচ কর্মকর্তার উপর আরোপিত স্যাংসান কে অচিরেই খারিজ করবার আহ্ববান করা হয় । বিশেষ করে ড. বেনজির আহাম্মেদের যুক্তরাষ্ট্রের ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত নিষেধাগ্গা কে পর্ত্যাহাহের দাবী জানানো হয় ।

হিন্দাল কাদির বাপ্পা বলেন বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের শক্তিকে দূর্বল করার জন্য আবারও মাঠে নেমেছে পূরনো শকুনগুলো। এই শকুনগুলো জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতা আসার পর থেকে ষড়যন্ত্র অব্যহত রেখেছে। তিনি যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বাংলাদেশ কনসুলেটের সমালোচনা করে বলেন তারা তাদের ভূমিকা যথাযথভাবে পালন করছেনা। তিনি বর্তমান কনসুলেট কর্মকর্তাদের দেশে পাঠিয়ে দিতে বলেন । এবং দেশ প্রেমিক অফিসার দের নিযেগযদিতে বলেন ।

ডঃ রাব্বী আলম বলেন দেশের বিরুদ্ধে তথা বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে যেকোন ষড়যন্ত্রের মোকাবিলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ অতীতের মত এখনও প্রস্তুত। তিনি বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনার যখন ভিসন ২০৪১ বাস্তবায়ন করার লক্ষ্য  কাজ করে যাচ্ছে সেই মুহুর্তে ৭১ এর পরাজিত শক্তি যুক্তরাষ্ট্রে মাথাছাড়া দিয়ে উঠেছে। যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুচক্রী মহলের এই পরিকল্পনা কখনও বাস্তবায়ন হতে দিবে না বলে তিনি উল্লেখ করেন। যুক্তরাষ্ট্র মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মমতাজ শাহনাজ বলেন দেশ যখন উন্নয়নের মহাসড়কে অবস্থান করছে তখন ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে নতুন নতুন পরিকল্পনা গ্রহন করছে উন্নয়ন বিরোধী জামাত শিবির চক্র।

যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মিনহাজ রাসেল চৌধুরী বলেন ড. রাব্বী আলমের গতিশীল নেতৃত্বে আমরা ষড়যন্ত্রকারীদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিব । আমরা অতীতে ও এদের বিরুদ্ধে ফেডারেল কোর্টে মামলা করেছি । আমারা আবারো প্রয়োজনে আইনি ব্যাবস্থা নিতে প্রস্তুত আছি ।

যুক্তরাষ্ট্র সেচ্ছাাসেবক লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সরদার বলেন আমাদের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন গুলোর নেতৃবৃন্দ যুক্তরাষ্ট্রের মেইন স্টীম রাজনীতি থেকে অনেক দূরে অবসথান করছে তাই বর্তমান পরিস্তিতিতে ডঃ রাব্বী আলমের মত সাহসী নেতৃবৃন্দকে কুলাঙ্গারদের বিরুদ্ধে সোচ্ছার হওয়ার আহবান জানান।

যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের  প্রচার সম্পাদক মোঃ শাহীন বলেন মেইন স্টীম রাজনীতির সাথে সেতুবন্ধন সম্ভব একমাত্র সাহসী রাজনৈতিক নেতা ডঃ রাব্বী আলমের পক্ষে। তিনি স্নারকলিপি প্রদানসহ বিভিন্ন সভা সমাবেশ আয়োজনের জন্য ডঃ রাব্বী আলম এবং যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামীলীগের বলিষ্ঠ কন্ঠস্বর হিন্দাল কাদির বাপ্পার প্রতি অনুরোধ জানিয়ে ৭১ এর পরাজিত শক্তির হাতকে অচিরেই দূর্বল করে দিতে হবে এই আহ্ববান জানান । মোঃ শাহীন বলেন অনান্য সংগঠনগুলো যখন নির্বিকার হয়ে বসে আছে তখন ডঃ রাব্বী আলমের নেতৃত্বে আজকের এই প্রতিবাদ সভা এবং প্রেস কনফারেন্স্র আয়োজনই প্রমান করে সঠিক সময়ে সঠিক নেতৃত্ব প্রদানের জন্য ডঃ রাব্বী আলমের  মত সাহসী রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের প্রয়োজন।

সমাপনীর বক্তব্যে ড. রাব্বী আরো বলেন, আমরা বিশ্বাস করি এই নিষেধাগ্গা অচিরেই প্রত্যাহার হবে এবং রেপিড এ্যাকশান ব্যাটেলিয়ান কে নিষেধাগ্গার পরিবর্তে পুরষ্কৃত করা হবে । কারন এই সংস্হাটি বাংলাদেশ কে শান্তিময় এবং দুর্নীতি দমন করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

আরও সংবাদ
error: Content is protected !!